‘আওয়ামী লীগ বৃক্ষরোপণ করে, বিএনপি-জামায়াত বৃক্ষ ধ্বংস করে’

‘আওয়ামী লীগ বৃক্ষরোপণ করে, বিএনপি-জামায়াত বৃক্ষ ধ্বংস করে’

তাজা খবর:

পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম বলেছেন, ‘প্রাকৃতিক ভারসাম্য বজায় রাখা এবং সবুজায়ন করতে আওয়ামী লীগ বৃক্ষরোপণ করে। আর বিএনপি-জামায়াত বৃক্ষ ধ্বংস করে। তারা শুধুই বৃক্ষই ধ্বংস করে না, মূলত দেশ বিরোধী সব ষড়যন্ত্র, মানুষ হত্যা ও গুম এগুলো হলো বিএনপির গুণ।’

মুজিববর্ষ উপলক্ষে জাতীয় সংসদ ভবন চত্বরে মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) ফলদ, বনজ ও ওষধি গাছের চারা রোপণ শেষে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকারে কিংবা বিরোধী দলে সব সময় বৃক্ষরোপণ করে। ১৯৮৪ সাল থেকে বর্ষাকালে কৃষক লীগের মাধ্যমে সারা দেশে বৃক্ষরোপণ করা হয়েছে। আর কিছুদিন আগেও রাজধানীতে হেফাজতের তাণ্ডবের সময় বিএনপি-জামায়াত-হেফাজত মিলে রাজধানীতে প্রকাশ্যে বৃক্ষ ধ্বংস করলো। এটা দেশবাসী ভুলে যায়নি।’

তিনি বলেন, ‘এবার মুজিব জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষণা করেছেন এক কোটি বৃক্ষরোপণ করবেন। আমাদের দলের প্রত্যেক নেতা-কর্মী সে কাজ করে যাচ্ছেন। এক কোটি গাছ তো আমরা লাগাবোই এবং এই কর্মসূচি আমাদের অব্যাহত থাকবে। তিনটি করে গাছ লাগালে তিন কোটি গাছ লাগানো যাবে।’

এনামুল হক শামীম বলেন, ‘যেখানেই হোক রাস্তার পাশে হলেও গাছ লাগাতে হবে। আর উপকূলীয় অঞ্চলে যে গাছগুলো মাটি ধরে রাখে যেমন-ঝাউ, নারকেল, খেজুর ও তালগাছ লাগাতে হবে। আর ব্যাপকভাবে ফলের গাছ লাগাতে হবে। কারণ আমাদের পুষ্টি এই ফল থেকে আসে।’

তিনি বলেন, ‘গাছ লাগানো মানুষ ও প্রকৃতির জন্য ভালো। গাছ লাগানোর মাধ্যমে প্রকৃতি সংরক্ষণ করা সম্ভব। গাছ যেমন কার্বন ডাই অক্সাইড শোষণ করে নেয়, তেমনি অক্সিজেন ছেড়ে আমাদের বাঁচতে সাহায্য করে। সুতরাং আমাদের সকলের উচিত বেশি বেশি করে গাছ লাগানো।’ তিনি গাছ লাগানোর পাশাপাশি তা সংরক্ষণের আহ্বান জানান।

উল্লেখ্য, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত সারা দেশে এক কোটি বৃক্ষের চারা রোপণ কর্মসূচির অংশ হিসেবে সংসদ ভবন চত্বরে গত ২৬ জুলাই বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। পর্যায়ক্রমে সকল সংসদ সদস্যবৃন্দ সংসদ ভবন চত্বরে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করবেন। এনামুল হক শামীম এ কর্মসূচিতে অংশ নেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *