আবরার হত্যা মামলা রায়ে খুশি পরিবার, রায় দ্রুত কার্যকরের দাবি

আবরার হত্যা মামলা রায়ে খুশি পরিবার, রায় দ্রুত কার্যকরের দাবি

তাজা খবর:

বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার রায়ে সন্তুষ্ট তার মা রোকেয়া খাতুনসহ পরিবারের সদ্যসরা। কুষ্টিয়া শহরের পিটিআই রোডের বাসায় বসে রায়ের খবর পাওয়ার পর সন্তুষ্টি প্রকাশ করে রায় দ্রুত কার্যকরের দাবি জানান। একই সঙ্গে যাবজ্জীবন জীবন দণ্ডপ্রাপ্তদের ফাঁসির দাবিও জানান।

দীর্ঘ দুই বছর দুই মাস পর বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করা হয়েছে। রায় ঘোষণার পরপরই আবরারের মা ও ভাই রায়ের সন্তুষ্টি প্রকাশ করলেও রায় দ্রুত কার্যকরের দাবি জানান।

এর আগে, আবরারের বাসায় গণমাধ্যমকর্মীরা গেলে সেখানে আবরার মা ও স্বজনেরা কান্নায় ভেঙে পড়েন। রায়ে ২০ জনের ফাঁসি দেয়া হয়েছে। আর ৫ জনের যাবজ্জীবন সাজা দিয়েছেন আদালত। সব আসামির ফাঁসির রায় দেয়া হলে পরিবার আরো খুশি হতো।

তবে আদালতের রায় পর্যালোচনা করে দেখবো, পূর্ণাঙ্গ রায় থেকে অন্যদের ফাঁসির জন্য আবেদন জানাব- উচ্চ আদালতে এমনটিই জানান আবরারের পরিবার।

২০১৯ সালে ৬ অক্টোবর রাতে ছাত্রলীগের এক নেতার কক্ষে নিয়ে নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করা হয় আবরারকে। রায় কার্যকর হলেই- এমন মেধাবী ছাত্রের আত্মা শান্তি পাবে। রায় কার্যকর হলেই- এমন হৃদয় বিদারক ঘটনা আর ঘটবে না। এমন দাবি আবরারের স্বজন ও প্রতিবেশীদের।

আবরার ফাহাদ কুষ্টিয়া জেলা স্কুলে লেখাপড়া শেষ করে ২০১৮ সালে ৩১ মার্চ তিনি বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) ভর্তি হন। তড়িৎ কৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *