ইচ্ছামতো স্থায়ী কমিটির পদ বিতরণ করায় তারেকের বিরুদ্ধে দলে বাড়ছে ক্ষোভ!

ইচ্ছামতো স্থায়ী কমিটির পদ বিতরণ করায় তারেকের বিরুদ্ধে দলে বাড়ছে ক্ষোভ!

নিউজ ডেস্ক: বেগম জিয়ার অনুপস্থিতিতে নিয়মনীতি উপেক্ষা করে ইচ্ছামতো সিদ্ধান্ত নেয়ার অভিযোগ উঠেছে লন্ডনে পলাতক বিএনপি নেতা তারেক রহমানের বিরুদ্ধে। যোগ্যতা, জ্যেষ্ঠতা ও দলের প্রতি দায়বদ্ধতার মতো মানদণ্ডের তোয়াক্কা না করে দলে স্থায়ী কমিটির সদস্য মনোনয়ন দেয়ার জন্য তারেক রহমানের বিরুদ্ধে নানা গুঞ্জন ও ক্ষোভ দানা বাধছে বিএনপিতে।

দলটির বিভিন্ন দায়িত্বশীল সূত্রের বরাতে বিএনপির অভ্যন্তরীণ বিশৃঙ্খলা ও অসন্তোষের বিষয়ে জানা গেছে।

নয়াপল্টন বিএনপির একটি সূত্র বলছে, বেগম জিয়া কারাগারে থাকায় দলের গুরুত্বপূর্ণ সকল সিদ্ধান্ত এককভাবে নিচ্ছেন তারেক। যাকে মনে ধরছে তাকেই গুরুত্বপূর্ণ পদের জন্য মনোনয়ন দিচ্ছেন তিনি। তারেক রহমানের নিয়মবহির্ভূত সিদ্ধান্তে কারো কপাল খুলছে আবার কারো কপাল পুড়ছে। এনিয়ে দলের অভ্যন্তরে দানা বাধছে ক্ষোভ ও অসন্তোষ।

সর্বশেষ জানা গেছে, দলের গুরুত্বপূর্ণ পদ পেতে সবাই এখন তাকিয়ে আছেন লন্ডনের দিকে। কার কখন সুসংবাদ আসে, এর জন্য অবশ্য অনেকেই গোপনে-প্রকাশ্যে লন্ডনে যোগাযোগও রাখছেন। খালেদা জিয়ার পরামর্শ, স্থায়ী কমিটিতে প্রস্তাবনা, কাউন্সিল ছাড়াই দলটির ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু ও বেগম সেলিমা রহমানকে স্থায়ী কমিটির সদস্য ঘোষণার পর এবার আরো তিনজনের নাম আসছে। ব্যবসায়ী ক্যাটাগরিতে আবদুল্লাহ আল নোমান ও আব্দুল আউয়াল মিন্টু ও সামরিক বাহিনী সাবেক সদস্য ক্যাটাগরিতে মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমদকে সিলেক্ট করেছেন তারেক রহমান। দলের এ দুঃসময়ে অর্থনৈতিক সাপোর্টের জন্য এ দুইজনকে অনেক বেশি প্রয়োজন বলে মনে করা হচ্ছে।

যদিও আব্দুল আউয়াল মিন্টুকে নিয়ে দলের ভেতর বহু আগে থেকেই বিতর্ক রয়েছে। একাদশ সংসদ নির্বাচনেও তথ্য ফাঁসের নাটের গুরু হিসেবে মিন্টুর নাম বারবার এসেছে। মিন্টু সরকারের এজেন্ট হয়ে কাজ করছেন বলেও নানা গুঞ্জন বিভিন্ন সময়ে চাউর হয়েছে দলটির অভ্যন্তরে। ব্যবসায়ী ক্যাটাগরিতে আবদুল্লাহ আল নোমানের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন থাকলেও রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা বিবেচনা করে অনেকে এ নিয়ে নীরব। অন্যদিকে হাফিজ উদ্দিনকে এবার স্থায়ী কমিটিতে স্থান না দিলে এবার তিনি দল ত্যাগ করে আলাদা দল গঠন করবেন, এমন শঙ্কা থেকে তাকে স্থায়ী কমিটিতে রাখতে বাধ্য হচ্ছেন তারেক।

জানা গেছে, স্থায়ী কমিটির সদস্যপদ বিতরণের এমন প্রেক্ষাপটে দলটির একাধিক সিনিয়র নেতৃবৃন্দ গোপনে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। অনেকেই রাগ-ক্ষোভে দল ত্যাগ করার বিষয়েও প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন বলেও নানা গুঞ্জন চাউর হচ্ছে দলের অভ্যন্তরে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *