ইভিএমে ভোট দিয়ে খুশি ভোটাররা

ইভিএমে ভোট দিয়ে খুশি ভোটাররা

নিউজ ডেস্ক:

উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটগ্রহণ চলছে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনে শনিবার (১ ফেব্রুয়ারি) । দু’সিটির বিভিন্ন কেন্দ্রগুলোতে নারী-পুরুষ ভোটাদের ব্যাপক উপস্থিতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। ভোট শুরুর আগেই দীর্ঘলাইনে অপেক্ষা করতে দেখা যায় তাদের।

কেন্দ্রে প্রবেশে তাদের সহযোগিতা করতে গেছে পুলিশ ও আনসার বাহিনীর সদস্যদের। তবে ভোটাদের বাড়তি আনন্দ দিয়েছে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) পদ্ধতি।

ভোটাররা বলছেন, এবার ইভিএমের মাধ্যমে ভোট অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তাই জাল ভোট হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। আমি ইভিএম মেশিনে বাটন চাপার সঙ্গে সঙ্গে আমার ছবি স্ক্রিনে চলে এসেছে।

শনিবার রাজধানীর সকাল ৮টায় গোপীবাগ আর কে মিশন রোডে শহীদ শাহজাহান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট প্রয়োগ শেষে এ সব মন্তব্য করেন ভোটাররা।

ভোটার আব্দুল মোতালেব খান বাংলানিউজকে বলেন, ইভিএম পদ্ধতি খুবই সহজ। কম সময়ে ভোট দেওয়া যায়। সবচেয়ে বড় কথা এ পদ্ধতিতে জাল ভোট দেওয়ার সম্ভাবনা নেই। আমার ভোট দেওয়ার সময় আমার ছবি স্ক্রিনে দেখা গেছে। এ থেকে আমি বলতে পারি, আমার ভোটটি সঠিক হয়েছে।

এ কেন্দ্রে ভোটপ্রয়োগ শেষে আমজাদ হোসেন মরণ নামে এক ভোটার বাংলানিউজকে বলেন, আমি শতভাগ বিশ্বাসী, আমার পছন্দের প্রার্থীকে আমি ভোট দিয়েছি, কারণ আমি ভোট দেওয়ার সময় আমার ছবি দেখতে স্ক্রিনে দেখতে পেয়েছি। আমি সত্যি খুবই আনন্দিত যে, আমি সহজ পদ্ধতিতে ভোট প্রয়োগ করেছি।

নাসরুল নামে আরেক ভোটার বলেন, মাত্র আধা মিনিটে আমার ভোট শেষ হয়েছে, এটা খুব ভালো। এখন পর্যন্ত ভোটের পরিবেশে ভালো রয়েছে।অন্যরা সুন্দরভাবে ভোট দিতে পারছেন, ভালো লাগছে সুষ্ঠু পরিবেশ দেখে। তাদের মতো অন্যরাও খুশি ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট দিতে পেরে।

গোপীবাগ আর কে মিশন রোডে শহীদ শাহজাহান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মোট চারটি বুথে ১৬০২ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

এবার প্রথমবারের মতো বিভক্ত ঢাকার দুই সিটিতে একযোগে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ হচ্ছে। আর এটিই ইভিএমে সবচেয়ে বড় নির্বাচন।

নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, এবার দু’সিটিতে মোট ভোটার ৫৪ লাখ ৬৩ হাজার ৪৬৭ জন ভোটার রয়েছেন। ২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিলের নির্বাচনের সময় দু’সিটিতে ভোটার ছিলো ৪২ লাখ ১৬ হাজার ১২৭ জন। পাঁচবছরে ভোটার বেড়েছে ১২ লাখ ৪৭ হাজার ৩৪০ জন। অর্থাৎ এক পঞ্চমাংশের বেশি ভোটার হচ্ছেন তরুণ ভোটার। এছাড়া দুই সিটিতে নারী ভোটার হচ্ছেন ২৬ লাখ ২০ হাজার ৪৫৯ জন।

ঢাকা উত্তর সিটিতে মোট ভোটার রয়েছেন ৩০ লাখ ১০ হাজার ২৭৩ জন। এর মধ্যে নারী ভোটার ১৪ লাখ ৬০ হাজার ৭০৬ জন। আর ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে ভোটার রয়েছেন ২৪ লাখ ৫৩ হাজার ১৯৪ জন। যাদের মধ্যে নারী ভোটার ১১ লাখ ৫৯ হাজার ৭৫৩ জন।

এবার ঢাকা উত্তর সিটিতে এক হাজার ৩১৮টি ভোটকেন্দ্রের সাত হাজার ৮৫০টি বুথে ৩০ লাখ নয় হাজার ভোটার এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে এক হাজার ১৫০ ভোটকেন্দ্রের ছয় হাজার ৫৮৯টি বুথে ২৪ লাখ ৫২ হাজার ভোটার রয়েছেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *