ডেটা ব্যবহারের সীমা

উঠে যাচ্ছে অব্যবহৃত ডেটা ব্যবহারের সীমা

তাজা খবর:

প্যাকেজের মেয়াদ শেষ হলে অব্যবহৃত ডেটা নতুন করে একই প্যাকেজে যোগ হওয়ার যে সীমা ছিল তা তুলে দিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। আগে ৫০ জিবি পর্যন্ত অব্যবহৃত ডেটা গ্রাহকের একই প্যাকেজে যোগ হতো (ক্যারি ফরওয়ার্ড)। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এখন থেকে অব্যবহৃত ডাটা ব্যবহারে আর এমন কোনো সীমা থাকছে না। বরং গ্রাহকের যত ডেটাই অব্যবহৃত থাকুক না কেন, একই ডেটা প্যাকেজ রিচার্জে তার পুরোটাই যোগ হবে। গতকাল আমাদের সময়কে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন বিটিআরসির সিস্টেমস অ্যান্ড সার্ভিসেস বিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ খলিল-উর-রহমান। তিনি জানান, খুব দ্রুত এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে।

অব্যবহৃত ডেটা ব্যবহারের সময়সীমা তুলে দিতে ‘মোবাইল ফোন অপারেটরসমূহের ডেটা এবং ডেটা প্যাকেজ সম্পর্কিত নির্দেশিকা-২০২৩’ সংশোধন করেছে বিটিআরসি। নতুন বছরের শুরুতে এই সিদ্ধান্ত মোবাইল অপারেটরগুলোকে জানিয়েছে নিয়ন্ত্রণ সংস্থাটি।

বিটিআরসির ডেটা প্যাকেজবিষয়ক সর্বশেষ নির্দেশিকার ৭.৫ ক্লজে বলা ছিল, একটি প্যাকেজের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই একজন গ্রাহক ওই প্যাকেজটি (ভ্যারিয়েশনসহ মেয়াদ বা ভলিউম ইত্যাদি) পুনরায় কিনলে আগের প্যাকেজটির অব্যবহৃত ডেটা ক্যারি ফরওয়ার্ড করতে পারবে আর গ্রাহক সর্বোচ্চ ৫০ জিবি পর্যন্ত এই ক্যারি ফরওয়ার্ড পাবেন। নতুন সংশোধনীতে বলা হয়েছে, গ্রাহকের ডেটা প্যাকেজের মেয়াদ শেষ হলে অব্যবহৃত ডেটা বোনাসসহ ক্যারি ফরওয়ার্ড হবে যদি গ্রাহক আগের প্যাকেজের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই একই ডেটা প্যাকেজ (আলাদা মেয়াদ হলেও) কেনেন।

বিটিআরসির এমন সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশন। তবে একই সঙ্গে ভিন্ন ডেটা প্যাকেজের ক্ষেত্রেও গ্রাহকের অব্যবহৃত ডাটা প্যাকেজ যোগ করার দাবি জানিয়েছেন তারা। সংগঠনটির সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘এতে গ্রাহকদের ভোগান্তিও কমবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *