করোনা সুরক্ষার ৪৬ পণ্যে শুল্ক কর মওকুফ

করোনা সুরক্ষার ৪৬ পণ্যে শুল্ক কর মওকুফ

তাজা খবর:

মহামারী করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ও চিকিৎসা সেবা সহজলভ্য করতে করোনার টেস্ট কিট, সার্জিক্যাল মাস্ক, সুরক্ষা পোশাক ও ডায়াগনস্টিক টেস্টের যন্ত্রপাতিসহ সংশ্লিষ্ট ৪৬ ধরনের পণ্য আমদানিতে যাবতীয় শুল্ক-কর অব্যাহতি দিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

আদেশে করোনা ভাইরাসের চিকিৎসাসেবা পণ্য আমদানির ক্ষেত্রে প্রযোজ্য সব ধরনের শুল্ক মূল্য সংযোজন কর এবং অগ্রিম আয়কর মওকুফ করা হয়েছে। এ সুবিধা ২০২২ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত বলবৎ থাকবে। এর আগে ২০২০ সালের ৫ অক্টোবর একই সুবিধা দিয়ে আদেশ জারি করেছিল এনবিআর। নতুন এই আদেশের মাধ্যমে ওই সুবিধা আবারও বাড়ানো হলো।

আদেশে বলা হয়েছে, কাস্টমস অ্যাক্ট ১৯৬৯, মূল্য সংযোজন কর ২০১২ এবং আয়কর আইন ১৯৮৪-এ প্রদত্ত ক্ষমতা বলে করোনা ভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারী মোকাবিলায় করোনার

টেস্ট কিট, ডায়াগনস্টিক টেস্টের যন্ত্রপাতি, সার্জিক্যাল মাস্ক, প্রটেকটিভ গার্মেন্টস প্লাস্টিক ও মেডিক্যাল শিট, প্লাস্টিক

ফেস শিট, ফুল বডি ওভেন স্যুট, মেডিক্যাল প্রটেকটিভ গগলস-সহ এ সংক্রান্ত সার্জিক্যাল পণ্যগুলোর আমদানির ক্ষেত্রে প্রযোজ্য আমদানি শুল্ক, শুল্ক সম্পূরক, রেগুলেটরি ডিউটি, মূল্য সংযোজন কর, আগাম কর এবং অগ্রিম আয়কর থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

তবে এ জন্য কিছু শর্ত দেওয়া হয়েছে। শর্তগুলোর মধ্যে রয়েছে, ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর অনুমোদিত আমদানির ক্ষেত্রে এ সুবিধা কার্যকর হবে এবং আমদানি করা পণ্য মানসম্মত কিনা তা ঔষধ প্রশাসনকে নিশ্চিত ও নিয়মিত মনিটর করতে হবে। একই সঙ্গে এই প্রজ্ঞাপনের আওতায় শুল্কমুক্ত সুবিধায় আমদানি করা পণ্যগুলোর আমদানিকারক এবং অনুমোদিত পরিমাণের তথ্য সংবলিত প্রতিবেদন প্রতি ছয় মাস অন্তর ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর কর্তৃক জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কাস্টমস (নীতি) শাখা বরাবর দাখিল করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *