‘কালিগঞ্জ সেতু’র জন্য বরাদ্দ ২৫ কোটি টাকা

‘কালিগঞ্জ সেতু’র জন্য বরাদ্দ ২৫ কোটি টাকা

পটিয়ার যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে আসছে যুগান্তকারী পরিবর্তন । পটিয়া-আনোয়ারার সাথে যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম ‘কালিগঞ্জ সেতু’র জন্য ২৫ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এতে করে দীর্ঘদিন ধরে চলা ও ঝুঁকিপূর্ণ এ সেতু এখন পূর্ণাঙ্গ দৃষ্টিনন্দন কংক্রিট সেতুতে রূপ লাভ করছে। পটিয়া উপজেলার কাশিয়াইশ ইউনিয়নের সর্ব দক্ষিণের এলাকা কালিগঞ্জ খালের উপর দিয়ে চলা ঝুঁকিপূর্ণ কালিগঞ্জ সেতুটি নতুন করে নির্মাণের কার্যক্রম শুরু করেছে সড়ক ও জনপদ বিভাগ। চলতি বছরের শেষের দিকে আনুষ্ঠানিকভাবে এ সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক ও জনপদ বিভাগ।

পটিয়া সড়ক ও জনপদ বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ কুতুব উদ্দিন জানান, চলতি বছরের শেষের দিকেই ২৫ কোটি টাকা ব্যয়ে পটিয়া কালিগঞ্জ সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু করা হবে। এ সেতুর ইতোমধ্যে ওয়ার্ক অর্ডারও হয়ে গেছে। এ সেতু নির্মাণের জন্য কাজ পেয়েছে মেজবা এসোসিয়েট নামের একটি কনষ্ট্রাকশন কোম্পানি এবং সেতুর কাজ বাস্তবায়নে রয়েছে দোহাজারী সড়ক বিভাগ।

আরো জানা যায় পিসি গার্ডার বিশিষ্ট সেতুটির দৈর্ঘ্য ৯০ মিটার এবং প্রস্থ ৪ লাইনের স্ট্যান্ডার্ড বিশিষ্ট ১০.২৫ মিটার। এতে ৩ স্পেনের এ ব্রিজে ৪টি পিলার নির্মিত হবে এবং সিসি ব্লক দ্বারা নদীর তীর ভাঙ্গন প্রতিরোধে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ সেতুর পূর্ণাঙ্গ কাজ শেষ হতে সর্বোচ্চ তিন বছর লাগতে পারে। নতুন সেতুটি নির্মিত হলে সড়কটি ব্যবহারকারী পটিয়া, আনোয়ারা ও চন্দনাইশ উপজেলার অসংখ্য মানুষের চলাচলে দীর্ঘদিনের ভোগান্তি শেষ হবে।

কালিগঞ্জ খালের ভাঙনের ফলে ১৯৭২ সালে নির্মিত কালিগঞ্জ সেতুর দু’পাশ ক্রমান্বয়ে খালে পরিণত হলে সেতুটি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়ে। ১৯৯৬ সালের পরে সড়ক ও জনপদ বিভাগ দুই পাশে স্টিলের পাটাতন বসিয়ে (বেইলি) সেতুটি ঝুঁকিপূর্ণ নির্দেশনা সম্বলিত সাইনবোর্ড দিয়ে যোগাযোগ সচল রাখে। এরপর বেশ কয়েকবার মেরামত করা হলেও নানা জটিলতার কারণে নতুন সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়নি। তবে সম্প্রতি নতুন সেতু নির্মাণের জন্য পটিয়া ও আনোয়ারা আসনের সংসদ সদস্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে চিঠি প্রেরণের ফলে সেতুটি নতুন করে নির্মাণ করার প্রক্রিয়া শুরু হয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *