খালেদা জিয়ার দেখা না পেয়ে ক্ষোভ ঝাড়লেন শরিক দলের নেতারা

খালেদা জিয়ার দেখা না পেয়ে ক্ষোভ ঝাড়লেন শরিক দলের নেতারা

তাজা খবর:

বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের ভার্চুয়াল বৈঠকে জোটের প্রধান বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার অনুমতি না পেয়ে শরিক দলের নেতারা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তারা বলেছেন, মুক্তি পাওয়ার পর আমরা খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছিলাম। আমাদের দেখা করার সুযোগ দেওয়া হয়নি। অথচ নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নাকে দেখা করতে দেয়া হয়েছে। মান্না দেখা করতে পারলে আমরা কেন পারবো না। ঢালাওভাবে সব শরিক নেতার সাক্ষাতের সুযোগ না হলেও অন্তত জোটের সিনিয়র কয়েকজন নেতা গিয়ে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে পারেন।

এর জবাবে বৈঠকে সভাপতিত্বকারী ২০ দলীয় জোটের সমন্বয়ক ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, জোটের নেতারা যাতে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে পারে সে বিষয়ে তিনি নিজ দলের সঙ্গে আলোচনা করে পরে জোট নেতাদের জানাবেন।

বৈঠকে জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ারসহ জোটের প্রায় অধিকাংশ নেতারা অংশগ্রহণ করেন। বৈঠকের সিদ্ধান্তগুলো জানাতে আজ সোমবার ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলন করবে ২০ দলীয় জোট।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের পর এই প্রথমবারের মতো ভার্চুয়াল বৈঠক করে ২০ দলীয় জোট। দীর্ঘদিন পর জোটের কোনও বৈঠকে উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিত্ব করলো জামায়াত। দলটির সেক্রেটারি জেনারেল অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার এ বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন। বৈঠকে ঢুকেই লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির একাংশের সভাপতি কর্নেল অব. অলি আহমদ অপরাংশের শাহাদাৎ হোসেন সেলিমকে দেখেই বেরিয়ে যান।

বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল হায়দার, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, জমিয়তে ওলামায়ে ইসলামের নির্বাহী সভাপতি আল্লামা নূর হোসেন কাসেমী, বাংলাদেশ জাতীয় দলের চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট সৈয়দ এহসানুল হুদা, বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট মাওলানা আব্দুর রকিব, বাংলাদেশ পিপলস লীগের চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট গরীবে নেওয়াজ, ন্যাপ ভাসানী চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট আজহারুল ইসলাম, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির চেয়ারম্যান খন্দকার লুৎফর রহমান, ডেমোক্রেটিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি, বাংলাদেশ ইসলামিক পার্টির চেয়ারম্যান আবু তাহের চৌধুরী, খেলাফত মজলিশের মহাসচিব ড. আহমদ আব্দুল কাদের, ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির চেয়ারম্যান ক্বারী আবু তাহের।

জানা গেছে,২০ দলীয় জোটের বৈঠকে রাজনৈতিক দল নিবন্ধন নিয়ে নির্বাচন কমিশনের নতুন আইনকে কালো আইন আখ্যা দেয়া হয়েছে। করোনা মহামারির মধ্যে এ ধরনের আইন করার বিষয়টিকে দুরভিসন্ধিমূলক বলে বৈঠকে জোট নেতারা অভিমত ব্যক্ত করেছেন। এ ছাড়াও ২০ দলীয় জোটের বৈঠকে পাটকল বন্ধ ও সীমান্তে বিএসএফ এর হাতে বাংলাদেশি হত্যার ঘটনায় প্রতিবাদ ও নিন্দা জানানো হয়। বৈঠকে কৃষকদের ৪ শতাংশ সুদে ঋণ দেওয়ার জন্য সরকারি প্রণোদনার টাকা পেতে নানা ধরনের শর্ত দেয়া হচ্ছে বলে আলোচনায় স্থান পায়। জোট নেতারা বিনাশর্তে কৃষকদের ঋণ দেয়ার দাবি জানিয়েছেন।

ডেমোক্রেটিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি বলেন, করোনা পরিস্থিতিসহ দেশের সার্বিক বিষয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। আমরা বেগম জিয়ার সাথে সাক্ষাত করতে চাই। মাহমুদুর রহমান মান্না দেখা করতে পারলে আমরা কেন পারবো না। আমরা সীমিত পরিসরে কয়েকজন নেতা তার সঙ্গে কথা বলতে চাই।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *