ট্রেনের জানালায় নেট লাগানোর ভাবনা, ডিজাইন দিলেন সেই মিলন

ট্রেনের জানালায় নেট লাগানোর ভাবনা, ডিজাইন দিলেন সেই মিলন

তাজা খবর:

রেলওয়ের পূর্ব ও পশ্চিম অঞ্চলের বিভিন্ন রুটে ট্রেনযাত্রীদের আতঙ্ক ছুঁড়ে মারা পাথর। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ তাই যাত্রীদের নিরাপত্তার জন্য ট্রেনের জানালায় জাল বা নেট লাগানোর বিষয়টি ভাবছে। তবে এ নিয়ে অনেকে সমালোচনা শুরু করে দিয়েছেন। কেউ আবার সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে ট্রেনের জানালায় যে ধরনের নেট বা জাল লাগানো হতে পারে তার নমুনা তুলে ধরেছেন।

গত রোববার (৩ অক্টোবর) দুপুরে রাজধানীর রেল ভবনে চলন্ত ট্রেনে পাথর নিক্ষেপ রোধে রেলওয়ে গৃহীত ব্যবস্থা ও মিডিয়ার ভূমিকা বিষয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে রেলপথমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন বলেন, চলন্ত ট্রেনে পাথর নিক্ষেপ রোধে কিছু কর্মসূচি নিয়েছে মন্ত্রণালয়। পূর্বাঞ্চলের চারটি জেলার চট্টগ্রাম, ফেনী ও নরসিংদী এবং পশ্চিমাঞ্চলের ১০টি জেলার ১৫টি এলাকায় বেশি পাথর নিক্ষেপের ঘটনা ঘটছে। এসব এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে। সেই সঙ্গে পাথর নিক্ষেপের ঘটনায় হতাহত ঠেকাতে কোচের জানালায় নেট লাগানো কথাও ভাবছে রেলওয়ে।

রেলমন্ত্রী বলেন, চলন্ত ট্রেনে যারা পাথর নিক্ষেপ করে তাদের অধিকাংশই মানসিকরোগী, ভবঘুরে, টোকাই বা ছোট বাচ্চা। ইতোমধ্যে বিষয়টি উদঘাটন করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত কাউকে সাজার আওতায় আনা যায়নি।

রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, গত জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলন্ত ট্রেনে পাথর নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে ১১০টি। ট্রেনের জানালার গ্লাস ভেঙেছে ১০৩টি। আহত হয়েছেন ২৯ জন।

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সাবেক অতিরিক্ত সচিব ও বর্তমানে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওএসডি) মো. মাহবুব কবীর মিলন তার ফেসবুক পেজে ‘পাথর নিক্ষেপ রোধে কোচের সব জানালায় নেট লাগাবে রেল’ উল্লেখ করে কিছু ডিজাইন উপস্থাপন করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে অনেকেই কমেন্টে প্রতিক্রিয়া জানাতে শুরু করেন।

তালহা জুবায়ের মাশহুর নিউটন প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে লিখেছেন, রেলভ্রমণের আনন্দটাই যে মাটি হয়ে যাবে…জানালা দিয়ে সবুজ প্রকৃতি যদি না দেখা যায়…! তবে সেফটি ফার্স্ট। বাল্যবিবাহ বন্ধের জন্য যেমন উদ্যোগ, ট্রেনে পাথর নিক্ষেপের বিষয়েও সচেতনতামূলক কার্যক্রম চালানো প্রয়োজন। বিশেষ করে বস্তি এলাকা ও পথশিশুদের এর আওতায় নিয়ে এসে সচেতন করা যেতে পারে।

মিরাজ আহমেদ রিপন লিখেছেন, নেট না লাগিয়ে টেম্পারড গ্লাস লাগানো যায় কিনা ভেবে দেখলে ভালো হবে। এগুলো অনেক শক্ত হয়ে থাকে। আমাদের দেশেও অনেক ভালো মানের টেম্পারড গ্লাস এখন পাওয়া যায়।

প্রসঙ্গত, রেলের বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ নিয়েও আগে আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দিয়েছিলেন সরকারি কর্মকর্তা মো. মাহবুব কবীর মিলন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *