ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার ‘সারেগামাপা’র চ্যাম্পিয়ন

‘সারেগামাপা’র চ্যাম্পিয়ন সৌম্য চক্রবর্তীকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে ২০১৫ সালে ভারতের জি বাংলার জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো ‘সারেগামাপা’র চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন সৌম্য চক্রবর্তী। গত রোববার তাঁকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার করেছে কলকাতার কাশীপুর থানার পুলিশ। গতকাল সোমবার তাঁকে শিয়ালদহ এসিজিএম আদালতে তোলা হয়। শুনানি শেষে আদালত সৌম্য চক্রবর্তীকে ১ জুন পর্যন্ত পুলিশি হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। সেদিন শুনানির পর পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানানো হবে। জানা গেছে, তাঁর বিরুদ্ধে রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগ করেছেন।

সৌম্য চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে যিনি ধর্ষণের অভিযোগ করেছেন, তাঁর বাড়ি হাওড়ায়। রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে রবীন্দ্রসংগীত নিয়ে পড়াশোনার করছেন। গান গাওয়ার সূত্রেই সৌম্য চক্রবর্তীর সঙ্গে তাঁর আলাপ হয়। অল্প দিনেই বন্ধুত্ব গাঢ় হয় তাঁদের। এরপর সৌম্যর মা তাঁকে একদিন দক্ষিণেশ্বরের বাড়িতে নিমন্ত্রণ করেন। খাবার খাওয়ার পর মেয়েটিকে সৌম্য তাঁর নিজের রুমে নিয়ে যান। এ সময় সৌম্য তাঁকে কোমল পানীয় খেতে দেন। মেয়েটির অভিযোগ, সেই কোমল পানীয়র সঙ্গে আগে থেকেই মাত্রাতিরিক্ত ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে রাখা হয়েছিল। ফলে তা খাওয়ার পর অল্প সময়েই মেয়েটি ঘুমিয়ে পড়েন। ওই সময় সৌম্য তাঁকে ধর্ষণ করে। ঘটনার শুরু ২০১৬ সালে।

এখানেই শেষ নয়। মেয়েটি আরও অভিযোগ করেছেন, ওই অবস্থায় সৌম্য তাঁর আপত্তিকর ছবি তোলেন এবং পরে সেসব ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেন। সেই ছবি দেখিয়ে মেয়েটিকে সৌম্য নানা ভাবে ব্ল্যাকমেল করেন এবং আরও একাধিকবার ধর্ষণ করেন।

৫ মে কাশীপুর থানায় সৌম্য চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন মেয়েটি। মামলায় সৌম্যর মা এবং তাঁর মামার বিরুদ্ধেও অভিযোগ করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, তাঁরা দুজনই পলাতক। তাঁদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

‘সারেগামাপা’র চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর ওই বছরই দীর্ঘদিনের প্রেমিকা রূপসাকে বিয়ে করেন সৌম্য চক্রবর্তী। তাঁরা কলকাতায় থাকেন। তাঁদের দুই বছর বয়সের এক কন্যাসন্তান রয়েছে। ‘সারেগামাপা’র চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর ২০১৮ সালে সৌম্য চক্রবর্তী ‘ইন্ডিয়ান আইডল’ প্রতিযোগিতায় অংশ নেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *