নবাবগঞ্জ-দোহারের ২২ ইউনিয়নে কানেক্টিভিটির যাত্রা শুরু

নবাবগঞ্জ-দোহারের ২২ ইউনিয়নে কানেক্টিভিটির যাত্রা শুরু

তাজা খবর:

ঢাকার নবাবগঞ্জ ও দোহার উপজেলার ২২টি ইউনিয়নে কানেক্টিভিটির যাত্রা শুরু হয়েছে। এর ফলে ইউনিয়নগুলোতে ইন্টারনেট সেবা আরও সহজলভ্য হয়ে উঠবে।

শনিবার (৯ অক্টোবর) আনুষ্ঠানিকভাবে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের ইনফো সরকার-৩ প্রকল্পের আওতায় কানেক্টিভিটির উদ্বোধন করা হয়।

নবাবগঞ্জ উপজেলার ওয়াসেফ মিলনায়তনে এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান। সম্মানিত অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক।

ঢাকার জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. শহীদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও অতিরিক্ত সচিব বিকর্ণ কুমার ঘোষ।

শেখ হাসিনার সততা, সাহস ও দূরদর্শিতার জন্য বাংলাদেশ আজ সুফল পাচ্ছে মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান। তিনি বলেন, ‘সবাই প্রশ্ন করে যে তোমাদের প্রধানমন্ত্রী কিভাবে দেশটা এই পর্যায়ে নিয়ে আসছে। তারা কেউ বিশ্বাস করতে চায় না। এখন প্রতিটি সেক্টরেই উন্নতি হয়েছে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক বলেন, আজ নবাবগঞ্জের প্রতিটি বাড়ি বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত। এখানে ফ্রিল্যান্সাররা উচ্চগতির ইন্টারনেট চায়। শিক্ষকরা আরও বেশি কম্পিউটার ল্যাব চায়। অথচ ১২ বছর আগে এই এলাকার মানুষর দাবি ছিলো বিদ্যুতের সংযোগ, রাস্তার মেরামত এবং কাঁচা রাস্তা পাকাকরণ করা। এই দাবিগুলো প্রধানমন্ত্রী পূরণ করেছেন বলেই কিন্তু উন্নত জীবনে যাওয়ার জন্য নতুন নতুন দাবি উপস্থাপন হচ্ছে।

দোহারে অনেক বেশি উন্নয়ন হয়েছে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমার কাছে এখানে এসে মনে হচ্ছে ঢাকারই অন্য একটি এলাকায় এসেছি। ঢাকার গুলশান-বনানী আর নবাবগঞ্জের বাজার, মার্কেট, শপিং মলের মধ্যে তেমন কোনো পার্থক্য নেই। এই শহর এবং গ্রামের পার্থক্য দূর করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই ১২ বছরের মধ্যে একটা দারিদ্র্য রাষ্ট্র থেকে মধ্যম আয়ের মর্যাদাশীল রাষ্ট্রে পরিণত করেছেন তিনি।

সবশেষে ইনফো সরকার-৩ প্রকল্পের আওতায় নবাবগঞ্জ ও দোহার উপজেলায় ২২টি ইউনিয়নে কানেক্টিভিটি উদ্বোধন করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *