প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ে শেখ রাসেল দিবস উদযাপন

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ে শেখ রাসেল দিবস উদযাপন

তাজা খবর:

‘শেখ রাসেল দীপ্ত জয়োল্লাস অদম্য আত্মবিশ্বাস’ প্রতিপাদ্যে দিনব্যাপী কর্মসূচির মাধ্যমে শেখ রাসেল দিবস উদযাপন করেছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

সোমবার (১৮-১০-২০২১) দিবসটি উপলক্ষে দিনের কর্মসূচির শুরুতে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মো. আবু হেনা মোস্তফা কামাল বিএনসিসি ক্যাডেট ও মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন দফতর দপ্তর/সংস্থা প্রধানদের হাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লেখা ‘আমাদের ছোট রাসেল সোনা’সহ শেখ রাসেলকে নিয়ে লেখা বেশ কিছু বই উপহার হিসেবে তুলে দেন।

পরবর্তীতে শেখ রাসেল দিবসের প্রতিপাদ্য নিয়ে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিনিয়র সচিব ড. মো. আবু হেনা মোস্তফা কামাল বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট কালোরাতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে ঘাতকদের হাতে নির্মম হত্যাকাণ্ডের শিকার হন জাতির পিতার কনিষ্ঠ সন্তান ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরি স্কুলের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র শেখ রাসেল। সেদিন শিশু রাসেলকে হত্যা করার মধ্য দিয়ে ঘাতকরা রাসেলের জীবনকেই শুধু কেড়ে নেয়নি, সেই সঙ্গে ধ্বংস করেছে তার অবিকশিত অপার সম্ভাবনা, যা সুন্দর ও শান্তিময় বাংলাদেশ এবং বিশ্ব গড়ার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারত।

তিনি বলেন, শেখ রাসেল আজ বাংলাদেশের মানুষের কাছে ভালোবাসা ও অনুপ্রেরণার নাম। যারা এদেশকে ভালোবাসে, যারা জাতির পিতাকে ভালোবাসে, যারা এদেশের উন্নয়ন এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণের অংশীদার, তারা সকলেই শিশু শেখ রাসেলের মর্মান্তিক জীবনাবসানের বেদনা হৃদয়ে ধারণ করে বাংলার প্রতিটি শিশু-কিশোর তরুণের মুখে হাসি ফোটাতে আজ বদ্ধপরিকর।

সভায় অংশগ্রহণকারী অন্যান্য বক্তাগণ শেখ রাসেল সম্পর্কে আবেগঘন আলোচনা করেন। শেষে শেখ রাসেলসহ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টে শাহাদাত বরণকারী জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ও অন্যান্য শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া করা হয়।

আইএসপিআর পরিদফতরে শেখ রাসেল দিবস উদযাপন

আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতরে (আইএসপিআর) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলের ওপর আলোচনা ও তার আত্মার শান্তি কামনা করে দোয়ার মাধ্যমে শেখ রাসেল দিবস পালিত হয়েছে। আইএসপিআর পরিদফতরে পরিচালক লে. কর্নেল আবদুল্লাহ ইবনে জায়েদ শেখ রাসেল দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে আলোচনা করেন। পরিদফতরের সকল স্তরের কর্মকর্তা কর্মচারীগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *