বদলে যাচ্ছে প্রাচ্যের ডান্ডি নারায়ণগঞ্জ

বদলে যাচ্ছে প্রাচ্যের ডান্ডি নারায়ণগঞ্জ

তাজা খবর:

যোগাযোগ, শিল্প পল্লীসহ নানা উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে বদলে যাচ্ছে প্রাচ্যের ডান্ডিখ্যাত নারায়ণগঞ্জ। রাজধানী ঢাকার নিকটবর্তী এই জেলাটি যুগ যুগ ধরেই অর্থনীতি ও বিভিন্ন দিক থেকে বেশ উন্নত। তবে বর্তমান সরকারের আমলে জেলার পাঁচটি উপজেলায় চলমান ধারাবাহিক উন্নয়ন কর্মে বদলে যাচ্ছে সার্বিক চিত্র। পুরো নারায়ণগঞ্জ ঘুরলে দেখা যাবে মেগা প্রকল্পসহ নানা কর্মযজ্ঞ। এর মধ্যে নারায়ণগঞ্জ পঞ্চবটি থেকে মুক্তারপুর সড়ক প্রশস্তকরণ, আড়াইহাজারে ইকোনমিক জোন, রূপগঞ্জে ফ্লাইওভারসহ ৩ হাজার ২০০ কোটি টাকার কাজ, চাষাঢ়া টু আদমজী সড়ক, ডিএনডি প্রকল্প, তৃতীয় শীতলক্ষ্যা সেতু, ঢাকা থেকে নারায়ণগঞ্জ ডুয়েলগেজ রেললাইন প্রকল্প, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোড ছয় লেনে উন্নীত করার কাজ, বাবুরাইল খাল ও শেখ রাসেল নগর পার্ক, বঙ্গবন্ধু বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ও শামসুজ্জোহা বিশ্ববিদ্যালয় অন্যতম।

নারায়ণগঞ্জ পঞ্চবটি থেকে মুক্তারপুর সড়ক প্রশস্তকরণ : মুন্সীগঞ্জের সঙ্গে ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জের সড়ক যোগাযোগ সহজ এবং ব্যয়সাশ্রয়ী করতে পঞ্চবটি থেকে মুক্তারপুর সেতু পর্যন্ত বিদ্যমান সড়ক দুই লেনে প্রশস্ত এবং দুই লেন এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ করা হবে। এ লক্ষ্যে একটি প্রকল্প হাতে নিতে প্রাথমিক প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার। প্রকল্প প্রস্তাবনা অনুযায়ী, সাত কিলোমিটার অ্যাটগ্রেড সড়ক দুই লেনে এবং ৩ দশমিক ৭৫ কিলোমিটার অ্যাটগ্রেড সড়ক চার লেনে উন্নীত করা হবে। প্রশস্ত চার লেন সড়কের দুই লেনের ওপর ছয় দশমিক ২৫ কিলোমিটারসহ ৯ দশমিক ছয় কিলোমিটার এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে (র‌্যাম্পসহ) নির্মাণ করা হবে। এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়েসহ ১০ দশমিক ৭৫ কিলোমিটার সড়ক নির্মাণে সর্বসাকুল্যে খরচ হবে ২ হাজার ২২৭ কোটি ৭৭ লাখ ৪৫ হাজার টাকা। ২০২৫ সালের জুনের মধ্যে নারায়ণগঞ্জ সদর ও মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলায় প্রকল্পটি বাস্তবায়নের কথা রয়েছে।

আড়াইহাজারে ইকোনমিক জোন : আড়াইহাজার উপজেলায় চলছে জেলার সবচেয়ে বড় উন্নয়ন মেগা প্রকল্পের কাজ। সেখানে প্রায় ১ হাজার একর জমির মধ্যে গড়ে তোলা হচ্ছে জাপান অর্থনৈতিক অঞ্চল। প্রায় ২ হাজার ৫৮২ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণাধীন এই মেগা প্রকল্পটির কাজ শেষ হলে এই অর্থনৈতিক অঞ্চলে এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে বড় বিনিয়োগের দেশ হবে জাপান। এখানে হাজার হাজার মানুষের কর্মসংস্থানের পাশাপাশি পুরো আড়াইহাজার উপজেলায় একটি বড় অর্থনৈতিক বিপ্লব হবে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই অর্থনৈতিক অঞ্চল বাস্তবায়ন হলে শুধু আড়াইহাজার নয়, এই উপজেলার আশপাশের বিভিন্ন অঞ্চলের সার্বিক চিত্রও পাল্টে যাবে।

রূপগঞ্জে ফ্লাইওভারসহ ৩ হাজার ২০০ কোটি টাকার কাজ : বর্তমান সরকারের আমলে এই উপজেলায় ৩ হাজার ২০০ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ হয়েছে। এর মধ্যে ১ হাজার ৮০০ কোটি টাকার সড়ক নির্মাণে রূপগঞ্জ উপজেলাকে অনন্য রূপ দিয়েছে। ঢাকা-সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের যানজট নিরসনে উপজেলার ভুলতা এলাকায় ‘ভুলতা চার লেনবিশিষ্ট ফ্লাইওভার’ নির্মাণের উদ্যোগ নেয় বর্তমান সরকার। ২৪০ কোটি ৬ লাখ টাকা ব্যয়ে ১ হাজার ২০৮ মিটার দৈর্ঘ্যরে এই ফ্লাইওভারটি দিয়ে চলছে যানবাহন।

চাষাঢ়া টু আদমজী সড়ক : উৎপাদিত শিল্পপণ্য পরিবহন সহজ ও সাশ্রয়ী করতে এবং কার্যকর রুট গড়তে আদমজী ইপিজেড সড়ক নির্মাণ করা হচ্ছে।

প্রকল্পটি বাস্তবায়নে ব্যয় ধরা হয়েছে ১১৩ কোটি ৫১ লাখ টাকা।

ডিএনডি প্রকল্প : ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ ও ডেমরা (ডিএনডি) এলাকার পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়নে কাজ চলছে। প্রকল্পের মেয়াদ দুই বছর বাড়িয়ে ২০২৩ সালের জুনে শেষ করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। ২০১৬ সালে প্রথম দফা অনুমোদনের সময় এ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছিল ৫৫৮ কোটি টাকা। সংশোধনের ফলে ব্যয়ের পরিমাণ বেড়ে হয় প্রায় ১ হাজার ৩০০ কোটি টাকা। প্রায় ২০ লাখ মানুষের জলাবদ্ধতার দুর্ভোগ লাঘব এবং দীর্ঘ মেয়াদি সুফল নিশ্চিত করতে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে সরকার।

তৃতীয় শীতলক্ষ্যা সেতু : নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার সৈয়দপুর ও বন্দর উপজেলার মদনগঞ্জ প্রান্তে শীতলক্ষ্যা নদীর ওপর নির্মাণ করা হচ্ছে তৃতীয় শীতলক্ষ্যা সেতু। সেতুটির সহকারী প্রকল্প পরিচালক সিদ্দিকুর রহমান জানিয়েছেন, এ পর্যন্ত প্রকল্পের প্রায় ৭৭ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে।

ঢাকা থেকে নারায়ণগঞ্জ ডুয়েলগেজ রেললাইন প্রকল্প : রাজধানী ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ শহরের যানজটের চাপ কমাতে ২০১৭ সালে বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ডুয়েলগেজ রেললাইন প্রকল্পের কাজ শুরু হয়ে তা এখনো চলমান। ৩৭৮ কোটি টাকা ব্যয়ে এই মেগা প্রকল্পটির প্রায় ৭৬ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে।

ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোড ছয় লেনে উন্নীত করার কাজ : চার লেনের বর্তমান ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক সড়কটি ছয় লেনে উন্নীত করার কাজ শুরু হয়েছে। সড়কটি প্রায় ১২৯ ফুট প্রশস্ত হবে। ৮.১০৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে এই সড়কটি ছয় লেনে উন্নীতকরণের কাজ চুক্তি অনুযায়ী ব্যয় হবে প্রায় ৩৬৫ কোটি টাকা।

বাবুরাইল খাল ও শেখ রাসেল নগর পার্ক : নারায়ণগঞ্জের বেশ কয়েকটি মেগা প্রকল্পের মধ্যে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের অধীনে নির্মাণাধীন শেখ রাসেল নগর পার্ক ও বাবুরাইল খাল অন্যতম। ২০১৬ সাল থেকে শুরু হওয়া দৃষ্টিনন্দন এ দুটি উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ এখন অনেকটাই দৃশ্যমান। প্রকল্পের সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন প্রায় ২৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হচ্ছে প্রকল্প দুটি। বাবুরাইল খালের ৮০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। নারায়ণগঞ্জ নগরীর উপকণ্ঠে শেখ রাসেল নগর পার্কের কাজও অনেকটা শেষের পর্যায়ে।

বঙ্গবন্ধু বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় : নারায়ণগঞ্জে অচিরেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে একটি সরকারি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হবে। ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়টি স্থাপনের প্রস্তাবে লিখিত অনুমোদন দিয়েছেন। এই সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়টির নাম হবে ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়’।

শামসুজ্জোহা বিশ্ব বিদ্যালয় : বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর ও স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত (মরণোত্তর) ভাষাসৈনিক জননেতা একেএম শামসুজ্জোহার নামে প্রতিষ্ঠা হচ্ছে ‘রূপায়ণ এ কে এম শামসুজ্জোহা বিশ্ববিদ্যালয়’। ইতিমধ্যে এই বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদনের সারসংক্ষেপে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুমোদন দিয়েছেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (বিশ্ববিদ্যালয়) মো. হেলাল উদ্দিন নতুন বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদনের কথা জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *