বিএনপির রাজনীতিতে এক অসহায় ব্যক্তির নাম মির্জা ফখরুল!

বিএনপির রাজনীতিতে এক অসহায় ব্যক্তির নাম মির্জা ফখরুল!

নিউজ ডেস্ক: মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বিএনপির মহাসচিব এবং বিরোধী দলীয় রাজনীতির এক অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির নাম। কিন্তু একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে জোট এবং নির্বাচনের পর বিভিন্ন বিতর্কিত সিদ্ধান্তের কারণে নিতান্তই অসহায় হয়ে পড়েছেন বিএনপির এই প্রশ্নবিদ্ধ নেতা।

মির্জা ফখরুলের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ইস্যুতে স্থায়ী কমিটির সাথে আলোচনা না করে প্রশ্নবিদ্ধ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার অভিযোগ উঠেছে। তার এমন একগুঁয়েমি ও বাড়াবাড়ির কারণে দলীয় সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে স্থায়ী কমিটির কাউকেই পাশে পাচ্ছেন না বিএনপির এই শীর্ষ নেতা। এমন তথ্য নিশ্চিত করেছে বিএনপির একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র।

এ প্রসঙ্গে কথা হয় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের সঙ্গে। তিনি বলেন, বেশকিছু দিন থেকে সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে মির্জা ফখরুল তার মতামত প্রকাশ করলেই স্থায়ী কমিটির প্রায় সবাই এর বিরুদ্ধে অবস্থান নেন। মূলত স্থায়ী কমিটির সাথে আলোচনা না করে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে বুঝিয়ে তার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করার চেষ্টা করেন মির্জা ফখরুল। যার কারণে দলের সিনিয়র নেতারা প্রায় সবাই তার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন। এতে দলীয়ভাবে চাপে পড়েছেন মির্জা ফখরুল।

জানা গেছে, চলতি বছরের ডিসেম্বরে কাউন্সিলের কথা ভাবছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। যে কাউন্সিলে মির্জা ফখরুলকে মহাসচিব পদ থেকে সরিয়ে দেয়া হবে বলেও নানা গুঞ্জন চাউর হচ্ছে। মির্জা ফখরুলের অবর্তমানে দলের অন্যান্য সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে স্কাইপে আলোচনায় তারেক রহমান এ বছরের ডিসেম্বরের নতুন মহাসচিব নির্বাচন করারও প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন বলে জানা গেছে। এমন গুঞ্জন কানে আসার পর মির্জা ফখরুল দলে তার অবস্থান নিয়ে অস্বস্তিতে পড়েছেন বলেও জানা গেছে।

এদিকে মির্জা ফখরুলের ভবিষ্যৎ’ নিয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির এক সিনিয়র নেতা বলেন, মির্জা ফখরুলকে মহাসচিব পদ থেকে অব্যাহতি দেয়ার জন্য তৃণমূল থেকে জোর দাবী উঠেছে। কাউন্সিলের আগেও হয়ত মির্জা ফখরুল ইসলামকে মহাসচিব পদ থেকে সরিয়ে দেয়া হতে পারে। যদি এমনটা হয় তবে বিএনপির রাজনীতিতে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পড়বেন মির্জা ফখরুল। আসলে তার জন্য কষ্ট লাগে। অন্যের বুদ্ধিতে চলার কারণে আজকে তাকে বিপদের সম্মুখীন হতে হচ্ছে। তার মতো কপালপোড়া নেতা বিএনপিতে নাই বললেই চলে। সত্যি বলতে, বিএনপির রাজনীতিতে কোণঠাসা হয়ে পড়েছেন তিনি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *