বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ৪৩ লাখ ছাড়াল

বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ৪৩ লাখ ছাড়াল

তাজা খবর:

মহামারি করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে আরো ৭ হাজার ৯০৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় মৃত্যু কমেছে সহস্রাধিক। এতে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা ৪৩ লাখ ৬ হাজার ৯৪৮ জনে পৌঁছেছে।
একই সময়ে প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ৬৯ হাজার ৯৪২ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা কমেছে প্রায় এক লাখ। এতে মহামারির শুরু থেকে ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২০ কোটি ৩৪ লাখ ৪ হাজার ৪৩৪ জনে।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে সোমবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে ইরানে। এ সময়ে দেশটিতে নতুন করে প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৯ হাজার ৬১৯ জন। করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত এ দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৪১ লাখ ৫৮ হাজার ৭২৯ জন আক্রান্ত এবং ৯৪ হাজার ১৫ জন মারা গেছেন।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় যুক্তরাষ্ট্রে নতুন সংক্রমণের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য পরিমাণে কমেছে। এ সময়ে দেশটিতে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৪ হাজার ৩৯০ জন। করোনাভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এ দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৩ কোটি ৬৫ লাখ ৪৩ হাজার ৩৩৮ জন আক্রান্ত এবং ৬ লাখ ৩৩ হাজার ১১৬ জন মারা গেছেন।

গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে ইন্দোনেশিয়ায়। এ সময়ে দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১ হাজার ৪৯৮ জন এবং নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৬ হাজার ৪১৫ জন। এছাড়া মহামারির শুরু থেকে দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৩৬ লাখ ৬৬ হাজার ৩১ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৭ হাজার ৯৬ জনের।

আর লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল করোনায় আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যায় তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৩৮৮ জন এবং নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৩ হাজার ৮৯৩ জন। অপরদিকে মহামারির শুরু থেকে দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ২ কোটি ১ লাখ ৬৫ হাজার ৬৭২ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৬৩ হাজার ৪৭০ জনের।

করোনায় আক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে এবং মৃতের সংখ্যার তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারত। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৪৪৭ জন এবং নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৬ হাজার ৩৫ জন। দেশটিতে মোট আক্রান্ত ৩ কোটি ১৯ লাখ ৬৯ হাজার ৫৮৮ জন এবং মারা গেছেন ৪ লাখ ২৮ হাজার ৩৩৯ জন।

মহামারি এ ভাইরাসে এখন পর্যন্ত ফ্রান্সে ৬৩ লাখ ৫ হাজার ১৫৮ জন, রাশিয়ায় ৬৪ লাখ ৪৭ হাজার ৭৫০ জন, যুক্তরাজ্যে ৬০ লাখ ৬৯ হাজার ৩৬২ জন, ইতালিতে ৪৩ লাখ ৯৬ হাজার ৪১৭ জন, তুরস্কে ৫৯ লাখ ১৮ হাজার ৫৪০ জন, স্পেনে ৪৫ লাখ ৮৮ হাজার ১৩২ জন, জার্মানিতে ৩৭ লাখ ৯৭ হাজার ৮৩৬ জন এবং মেক্সিকোতে ২৯ লাখ ৬৪ হাজার ২৪৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

অন্যদিকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ফ্রান্সে এক লাখ ১২ হাজার ২২০ জন, রাশিয়ায় এক লাখ ৬৪ হাজার ৮৮১ জন, যুক্তরাজ্যে এক লাখ ৩০ হাজার ৩২০ জন, ইতালিতে এক লাখ ২৮ হাজার ২২০ জন, তুরস্কে ৫২ হাজার ১৯৬ জন, স্পেনে ৮২ হাজার ৬ জন, জার্মানিতে ৯২ হাজার ২৮১ জন এবং মেক্সিকোতে ২ লাখ ৪৪ হাজার ২৪৮ জন মারা গেছেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনায় আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর গত বছরের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে ‘বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে। এর আগে একই বছরের ২০ জানুয়ারি বিশ্বজুড়ে জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *