ভোট ফর আতিক, তারকা রিয়াজ-বাঁধনকে নিয়ে প্রচারণায় ‘বাংলার মমতা’!

ভোট ফর আতিক, তারকা রিয়াজ-বাঁধনকে নিয়ে প্রচারণায় ‘বাংলার মমতা’!

নিউজ ডেস্ক:

মাইলের পর মাইল তিনি হাঁটতে পারেন। যখন তথ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ছিলেন তখনও একাধিকবার লোকাল বাসচেপে বাসায় ফিরে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছিলেন। আদতে একেবারেই সাদামাটা জীবন যাপনে অভ্যস্ত তারানা হালিম। এক সময়কার জনপ্রিয় এই তারকা আবারও আলোচিত হয়েছেন।

তবে এবার নিজের জন্য নয়, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলামের জন্য। এই প্রার্থীর পক্ষে হেঁটে হেঁটে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরেছেন; রাজধানীর এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে। আতিকুল ইসলামের জন্য নৌকা মার্কায় ভোট চেয়েছেন।

রাজধানীর ফার্মগেট এলাকার কাঁচাবাজারে নারী-পুরুষদের কাছে যখন আতিকুল ইসলামের প্রচারপত্র তুলে দিচ্ছিলেন তখন তার সঙ্গেই ছিলেন চলচ্চিত্রের হার্টথ্রুব নায়ক রিয়াজ আর ছোট পর্দার প্রথম সারির লাস্যময়ী অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধন।

এসব ঘটনাপ্রবাহ বুধবারের (১৫ জানুয়ারি) সকালের। একসঙ্গে জনপ্রিয় তিন তারকাকে কাছে পেয়ে পথ চলতি সাধারণ মানুষও ভিড় করেছেন। নামি সব তারকাকে কাছে পেয়ে হাতছাড়া করতে চাননি হালের জনপ্রিয় ট্র্যান্ড সেলফি তুলতে।

প্রতিদ্বন্দ্বী অন্য প্রার্থীর চেয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলামই কেন সেরা? বুদ্ধির সঙ্গে যুক্তির যুগপৎ সম্মিলন ঘটিয়ে সাধারণ ভোটারদের কাছে সেই বক্তব্যই যেন উপস্থাপন করেছেন সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি অ্যাডভোকেট তারানা হালিম।

‘আতিকুল ইসলাম একজন ভাল মনের মানুষ। ৯ মাস উত্তরের মেয়র ছিলেন। এক মুহুর্তও ঘরে বসে না থেকে সুন্দর ঢাকা নগরী উপহার দিতে তিনি অবিরাম কাজ করেছেন। গরিব-ধনী কোন ভেদাভেদ নেই তাঁর কাছে। আনিসুল থেকে আতিকুল আমি মনে করি এই যাত্রা সফল হবে।’

রাজধানীর ফার্মগেটে আল রাজী হাসপাতালের সামনে আতিকুল ইসলামের প্রচারপত্র ভোটারদের হাতে তুলে দেওয়ার সময় এভাবেই বলছিলেন তারানা। সঙ্গে থাকা নায়িকা আজমেরী হক বাঁধন বলেন, ‘একটি সুন্দর ঢাকা গড়ার জন্য যেমন মানসিকতা দরকার সেই মানসিকতা রয়েছে আতিক ভাইয়ের। স্বপ্নের ঢাকা বিনির্মাণে তিনি বিকল্পহীন।’

তারানা, রিয়াজ ও বাঁধন; তিন তারকা হেঁটে যাচ্ছেন। এক ফার্মেসীর দোকানে নিজের চেনা হাসির দ্যুতি ছড়িয়ে তারানা যখন উচ্চারণ করলেন- ‘প্লিজ আতিক ভাইকে আপনার মূল্যবান ভোটটি দিবেন।’ ওই দোকানি তখন বললেন, ‘আপনারা আমাদের কাছে এসেছেন। জ্যাম না বাঁধিয়ে হেঁটে হেঁটে ভোটারদের কাছে যাচ্ছেন। সত্যিই আপা আপনি আমাদের এই বাংলার মমতা।’

স্বভাবসুলভ হাসির রেশ কাটতে না কাটতেই হেঁটে হেঁটে ফার্মগেটের কাঁচাবাজারে দিকে ছুটলেন বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের প্রচারণা দলটি। আলু, টমেটো, শিম, গাজরসহ হরেক রকমের সবজি নিয়ে বসে থাকা শেফালী বেগমের উচ্চারণ-‘তারানা আফা আইছে। ভোট না দিয়া যামু কই। আমরা সবাই আতিক ভাইরেই ভোট দিমু।’

তারকারা রাজধানীর হলিক্রস স্কুল, ছাপড়া মসজিদ, লুকাস রেলগেট, নাবিস্কো, কুনিপাড়া বেগুনবাড়ি ও তেজগাঁও এলাকায় আতিকুল ইসলামের পক্ষে ব্যাপক জনসংযোগ করেন।

এর আগে আনুষ্ঠানিক নির্বাচনী প্রচারণার ৬ষ্ঠ দিনে বুধবার (১৫ জানুয়ারি) সকালে ফার্মগেটে আল রাজী হাসপাতালের সামনে থেকে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আতিকুল ইসলামের সঙ্গে প্রচারণা শুরু করে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট।

বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি তারানা হালিমের নেতৃত্বে চিত্রনায়ক রিয়াজ, অভিনেত্রী বাঁধন, সাবেক ফুটবলার কায়সার হামিদসহ অনেকেই আতিকুলের পক্ষে ভোট চান। পাশাপাশি পথচারীদের কাছে ভোট চেয়ে লিফলেট বিতরণ করেন।

আতিকুল ইসলামের পক্ষে প্রচারণার বিষয়ে সাবেক তথ্যপ্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট তারানা হালিম কালের আলোকে বলেন, ‘স্বচ্ছ, সৎ এবং ভাল কাজে পারঙ্গম আতিকুল ইসলাম। প্রয়াত আনিসুল হকের জন্যও আমরা নির্বাচনী প্রচারণায় সক্রিয় ছিলাম।

এরই ধারাবাহিকতায় জননেত্রী, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মনোনীত প্রার্থী আতিকুল ইসলামের পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় নেমে অভূতপূর্ব সাড়া পেয়েছি।’ এ সময় তিনি বলেন, ‘আ-আনিসুল, আ-আতিকুল, আ-আওয়ামী লীগ, আ-আগামীর স্বপ্নযাত্রা সবার।’

একই বিষয়ে চিত্রনায়ক রিয়াজ কালের আলোকে বলেন, ‘প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের উত্তরসূরী আতিকুল ইসলাম ভাই একজন যোগ্য প্রার্থী। তিনি গত ৯ মাসে রাউন্ড দ্যা ক্লক ভাল কাজ করেছেন। তাকেই ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র হিসেবে নির্বাচিত করা হলে উন্নয়ন চলমান থাকবে এবং আমরা সুন্দর একটি ঢাকা শহর উপভোগ করতে পারবো।’

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *