মশাবাহিত রোগ নিয়ন্ত্রণে আলাদা সেল হচ্ছে: এলজিআরডি মন্ত্রী

মশাবাহিত রোগ নিয়ন্ত্রণে আলাদা সেল হচ্ছে: এলজিআরডি মন্ত্রী

মশাবাহিত রোগ নিয়ন্ত্রণে আলাদা সেল তৈরি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় (এলজিআরডি) মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। তিনি জানিয়েছেন, এরইমধ্যে সেল সম্পর্কিত খসড়া তৈরি করতে একজন অতিরিক্ত সচিবকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) রাজধানীর ইস্কাটনে বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ (বিস) মিলনায়তনে আয়োজিত ‘ভেক্টর প্রব্লেমস ইন বাংলাদেশ; অ্যান ইন্টিগ্রেটেড অ্যাপ্রোচ ’-শীর্ষক সেমিনারে মন্ত্রী প্রধান এ তথ্য জানান। সেন্টার ফর গভর্নেন্স স্টাডিজ (সিজিএস) এ সেমিনারের আয়োজন করে।

তিনি বলেন,”মশা নিয়ন্ত্রণে এবং মশাজনিত স্বাস্থ্যগত সমস্যাগুলোর সমাধানে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে আলাদা একটি সেল করা হচ্ছে। এই সেলের কাজ কী হবে তার খসড়া তৈরি করতে ইতোমধ্যে একজন অতিরিক্ত সচিবকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।”

মন্ত্রণালয়ের অধীনে সেল গঠনের প্রয়োজনীয়তা বর্ণনা করে তাজুল ইসলাম বলেন, মশাবাহিত রোগগুলো শুধু শহরে নয়, গ্রামেও হয়। এ মন্ত্রণালয় শহর, নগর, জেলা, উপজেলা, পৌরসভা, ইউনিয়ন ও গ্রাম পর্যায়ে কাজ করে থাকে। সেজন্য এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, “মশাবাহিত রোগের সমস্যা সমাধানে জনসচেতনতার বিকল্প নেই। সচেতনতা বাড়াতে হলে পাঠ্য বইয়ে এই বিষয়গুলি অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। আমাদের গরুর রচনা পড়ালে চলবে না। সড়কে চলাচলের নিয়মকানুন ও মশাবাহিত রোগসহ জনসচেতনতামূলক নানা বিষয় জাতীয় শিক্ষা বোর্ডের সিলেবাসে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। তাহলে শিশুরা ছোট থেকে বিষয়গুলো সম্পর্কে সচেতন হবে।”

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *