রাজবাড়ীর সড়ক গুলো জনশূন্য, কঠোর লকডাউন

রাজবাড়ীর সড়ক গুলো জনশূন্য, কঠোর লকডাউন

আবুল কালাম আজাদ (স্টাফ রিপোর্টার):

দিনকে দিন বেড়েই চলেছে করোনায় আক্রান্ত ও সংক্রমণের সংখ্যা। যার জন্য সরকার কঠোর লকডাউন ঘোষণা করেছে এই পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের জন্য। যা শুরু হয়েছে আজ (১ জুলাই) ভোর ৬ টা থেকে আগামী (৭জুলাই) গভীর রাত পর্যন্ত।না মানলে হতে পারে কঠোর শাস্তি (৬ মাসের জেল)।

গত (৩০ জুন) বুধবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে প্রজ্ঞাপন জারির মাধ্যমে উক্ত বিধিনিষেধ আরোপ করে। সেই সাথে নির্দেশনা ও দেওয়া হয়েছে।

সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে, সকল সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্ত্বশাসিত ও বেসরকারি অফিসসূমহ বন্ধ থাকবে।সকল প্রকার যন্ত্রচালিত যানবাহন চলাচলবন্ধ থাকবে।শপিংমল ও মার্কেটসহ সকল দোকানপাট বন্ধ থাকবে।

আইন-শৃঙ্খলা এবং জরুরি পরিষেবা যেমন-কৃষি পণ্য ও উপকরণ ( সার, বীজ, কীটনাশক, কৃষি যন্ত্রপাতি ইত্যাদি) খাদ্য শস্য, খাদ্য দ্রব্য পরিবহন , ত্রাণ বিতরণ, স্বাস্থ্য সেবা, কোভিড-১৯ টিকা প্রদান, রাজস্ব আদায় সম্পর্কিত কার্যাবলি, বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস/জ্বালানি, ফায়ার সার্ভিস, টেলিফোন ও ইন্টারনেট, গণমাধ্যম, বেসরকারি নিরাপত্তা ব্যবস্থা, ডাক সেবা, ব্যাংক, ফার্মেসি ও ফার্মাসিটিক্যালসহ অন্যান্য জরুরি পণ্য ও সেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অফিসসমূহের কর্মচারি ও যানবাহন প্রতিষ্ঠানিক পরিচয়পত্র প্রদর্শন সাপেক্ষে যাতায়ত করতে পারবে।

সন্ধ্যা ৬টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত অতি জরুরি প্রয়োজন ছাড়া (ওষুধ ও নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ক্রয়, চিকিৎসা সেবা, মৃতদেহ দাফন ও সৎকার ইত্যাদি) কোনোভাবেই বাড়ির বাইরে বের হওয়া যাবে না।

‘আর্মি ইন এইড টু সিভিল পাওয়ার’ বিধানের আওতায় মাঠ পর্যায়ে কার্যকর টহল নিশ্চিত করার জন্য সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ প্রয়োজনীয় সংখ্যক সেনা মোতায়েন করবে। জেলা ম্যাজিস্ট্রেট স্থানীয় সেনা কমান্ডারের সঙ্গে যোগাযোগ করে বিষয়টি নিশ্চিত করবেন।

সরকারি বিধি নিষেধ বাস্তবায়নে (১ জুলাই) সকাল ৬ থেকে রাজবাড়ী জেলার প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। যার ফলে রাজবাড়ী জেলার প্রতিটি স্থানেই সঠিক ভাবে পালন হচ্ছে লকডাউন।

সারাদিন রাজবাড়ী কুষ্টিয়া আঞ্চলিক সড়কে পণ্যবাহী ট্রাক ও জরুরি প্রয়োজনে ব্যবহৃত এম্বুলেন্স ব্যতীত অন্যান্য গাড়ির দেখা মেলেনি।

জেলার প্রতিটি উপজেলা শহরের সড়ক গুলো ছিলো জনশূন্য। তেমন কোন দোকান খোলা ছিলো না, কয়েকটি ওষুধের দোকান ব্যতীত।

গুরুত্বপূর্ণ স্থানে কর্তব্যরত পুলিশ সদস্যদের সাথে কথা বলে জানা যায়, তাদের ৮ ঘন্টা করে ডিউটি রয়েছে। রাতে কি হবে সে বিষয়ে জানান আমাদের রাতেও ডিউটি থাকবে তবে অন্য গ্রুপ। এছাড়াও সারাদিন রাত মোবাইল টিম কাজ করছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *