সাভারে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে কলেজ ছাত্রের আত্মহত্যা

সাভারে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে কলেজ ছাত্রের আত্মহত্যা

তাজা খবর:

রাজধানীর সন্নিকটে সাভারের রেডিও কলেনি এলাকার বাসিন্দা ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল এন্ড কলেজের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী বিকাশ ইসলাম (২১) তার ব্যবহৃত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে নদীতে ঝাপ দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

সোমবার সকাল সাড়ে ১০টারদিকে বংশী নদীতে তল্লাশী চালিয়ে তার মরদেহ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিস। এরআগে রোববার রাত ৮টার দিকে সাভারের নামাবাজার বংশী নদীতে ঝাপ দিয়ে নিখোঁজ হয়েছিল এই কলেজ ছাত্র।

পুলিশ জানায়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্বিবিদ্যালয় স্কুল এন্ড কলেজের এইচএসসি প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী বিকাশ ইসলাম রোববার রাত ৮টারদিকে নিজের ফেসবুকে বাবা-মার কাছে ক্ষমা চেয়ে আত্মহত্যার কথা উল্লেখ করে বংশী নদীর ব্রীজ থেকে পড়ে নিখোঁজ হয়।

খবর পেয়ে সোমবার সকালে ফায়ার সার্ভিসের ডুবরি দল বংশ নদীতে তল্লাশী করে তার লাশ উদ্ধার করে। এদিকে নিখোঁজ শিক্ষার্থীর একজোড়া স্যান্ডেল বংশী নদী থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

ওই শিক্ষার্থী ফেসবুকে লিখেছিলেন, “কৃতজ্ঞতা জানাই আমার পরিবার, আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব ও আমার প্রিয় মানুষটাকে। আমার কারো প্রতি কোনো ক্ষোভ রাগ অভিমান নাই। যা করেছি বাস্তবতার সাথে তাল না মেলাতে পারার জন্যই করেছি। আমি হেরে গেছি আমি ব্যর্থ। অনেক ইচ্ছা ছিল নিজে কিছু করে বাবা-মার সেবা-যত্ন করার। কিন্তু বাস্তবতা আসলেই কঠিন যা অনেকে মেনে নিতে পারে, আবার অনেকে পারে না। আমি না পাড়ার দলেই পড়লাম। মা পারলে মাফ করে দিও।”

সাভার ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা হাসিবুল হাসান জানায়, রাতে আলো স্বল্পতার কারণে উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করা সম্ভব হয়নি। তবে সোমবার সকাল থেকে উদ্ধার অভিযান শুরু করে ডুবুরি দল। প্রায় ১০টার দিকে নিহতের মরদেহ বংশী নদী থেকে উদ্ধার করা হয়।

ওই শিক্ষার্থী সাভারের রেডিওকলোনী এলাকায় মোকছেদ মিয়ার বাড়িতে বাবা-মার সাথে ভাড়া থাকতো। সে কুষ্টিয়া জেলার আমান উল্লার ছেলে।

সাভার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এফএম সায়েদ বলেন, কি কারণে ওই শিক্ষার্থী ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে নদীতে পড়ে আত্মহত্যা করেছে বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *