সারাদেশে পালিত হচ্ছে গণতন্ত্রের বিজয় দিবস

সারাদেশে পালিত হচ্ছে গণতন্ত্রের বিজয় দিবস

নিউজ ডেস্ক:

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রথম বর্ষপূর্তি আজ ৩০ ডিসেম্বর, সোমবার। গত বছর এই দিনে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট নিরঙ্কুশ জয় পায়। নির্বাচনে বাংলাদেশের বড় দুটি দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপিসহ নিবন্ধিত ৩৯টি দল অংশগ্রহণ করে।

২০১৮ সালে ২য় বারের মত ক্ষমতায় আসে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। জনগণের বিপুল ভোটে অবিস্মরণীয় এক জয় পায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বেড়ে ওঠা এই দলটি। এরপর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাদের। ২০০৮, ২০১৪ এবং ২০১৮ টানা তিন তিনবার জয়ের ধারা অব্যাহত রেখেছে এই দলটি।

২০১৮ সালের নির্বাচনের ফলাফলে দেখা যায়, ২৮৮টি আসনের মধ্যে আওয়ামী লীগ ২৫৯, জাতীয় পার্টি ২০, ওয়ার্কাস পার্টি ৩, জাসদ ২, বিকল্পধারা ২, তরিকত ফেডারেশন ১, জেপি ১টি আসন লাভ করে। সে হিসেবে বেসরকারিভাবে জয়ী হয় আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট। বিএনপির ১৮ দলীয় জোট অর্থাৎ জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট পায় মাত্র সাতটি। যেখানে বিএনপি ৫ ও গণফোরাম পায় মাত্র ২ টি আসন। স্বতন্ত্রসহ অন্যান্যরা জয় পায় ৩টি আসনে।

এই নির্বাচনে জয়ের পর চলতি বছরের ৭ জানুয়ারি চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন শেখ হাসিনা। নতুন সরকারের জন্য গঠন করেন ৪৭ সদস্যের মন্ত্রীসভা। তরুণ আর অভিজ্ঞদের সমন্বয়ে এই মন্ত্রীসভায় ছিলো চমকে ভরা। যেখানে আগের কেবিনেটের বাদ পরেন পূর্বের ২৫ পূর্ণমন্ত্রী। নতুন মন্ত্রীসভায় ২৭জনই ছিলেন নতুন মুখ।

নির্বাচনের প্রথম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে আজ (৩০ ডিসেম্বর) ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ পালন করবে ক্ষমতাসীন দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। ২৯ ডিসেম্বর (রোববার) রাতে দলটির দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয় এবং এ উপলক্ষে কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। এছাড়াও দিনটি উপলক্ষে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি সংস্থা, আওয়ামী লিগের অঙ্গসংগঠনসমূহ এবং সামাজিক সংগঠনগুলো বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

বিগত বছরগুলোতে আওয়ামী সরকারের কার্যক্রম পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, দেশ দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলছে সামনে। তলাহীন ঝুড়ি থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশকে টেনে তুলে এনেছেন মধ্যম আয়ের দেশে। বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্যমতে, ২০১৪-২০১৫ অর্থবছরে যেখানে প্রবাসী আয় ছিলো মাত্র ১ হাজার ৫৩১ কোটি ডলার। মাত্র কয়েক বছরের ব্যবধানে প্রবাসী আয়ের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১৮ দশমিক ১৯ বিলিয়ন বা ১ হাজার ৮১৯ কোটি মার্কিন ডলার, যা গত বছরের তুলনায় ১৭ শতাংশের বেশি।

বাংলাদেশের এমন ঈর্ষণীয় উন্নতির ফলে বিশ্বকে অবাক করে দিয়েছে বর্তমান সরকার। দেশের স্থাপনা শিল্পে, প্রযুক্তি, ব্যবসা-বাণিজ্যে, যোগাযোগ, বেকার সমস্যা সমাধান, শিশুমৃত্যুর হার কমিয়ে আনা, গড় আয়ু বৃদ্ধি, শতভাগ বিদ্যুতায়ন, শিক্ষার ব্যবস্থার পরিবর্তন, পরিবেশ রক্ষায় নানা পদক্ষেপের ফলে দেশে এবং বহির্বিশ্বে সুনামের সাথে নানা সম্মান ও পুরষ্কারে ভূষিত হয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

দিবসটি উপলক্ষে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে আজ বেলা তিনটায় ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হবে বিজয় সমাবেশ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *