সালমান চান, ক্যাটরিনা বিয়ে করুক

বলিউড তারকা সালমান খান আর ক্যাটরিনা কাইফের সম্পর্ক পুরোনো। তাঁরা এককালের সহকর্মী, প্রেমিক-প্রেমিকা আর এখন খুব ভালো বন্ধু। সালমান খান ও ক্যাটরিনা কাইফ তাঁদের প্রেম নিয়ে প্রকাশ্যে কখনো কিছু বলেননি, কিন্তু তাঁদের আচরণ বলে দিয়েছে, ডুবে ডুবে জল খাচ্ছেন তাঁরা। এভাবে এই জুটির অঘোষিত প্রেমে বুঁদ হয়ে ছিল বলিউড।

রূপকথার সেই প্রেমে রণবীর কাপুর দমকা হাওয়া হয়ে উড়িয়ে নিয়ে গেলেন রাজকন্যা ক্যাটরিনা কাইফকে। মুহূর্তেই তছনছ হয়ে যায় সালমান খানের সাজানো বাগান। তারপর হঠাৎ একদিন শোনা গেল, রণবীর নাকি আলিয়া ভাটের প্রেমে মজেছেন আর শুটিংয়ের মাত্র পাঁচ দিন আগে সালমান খানের ‘ভারত’ ছবি ছেড়েছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। সময়টাকে কাজে লাগিয়ে ঝোপ বুঝে কোপ মারেন সালমান। ক্যাটরিনার কাছে ‘ভারত’ ছবির প্রস্তাব নিয়ে যান এই সাবেক প্রেমিক। আর তাতে ‘হ্যাঁ’ বলেন সদ্য হৃদয় ভাঙা প্রেমিকা ক্যাটরিনা।

এরপর শুটিং সেটে প্রেমের অভিনয় করতে করতে পুরোনো প্রেম কি জেগে উঠেছে? বলিউডের সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, ‘হ্যাঁ।’ আর সেসব খবর দেখে সালমান ও ক্যাটরিনা আগের মতোই মুখে কুলুপ এঁটে কেবল মুচকি হাসছেন।

পরিসংখ্যান বলে, পর্দার বাইরে ক্যাটরিনার মুখে সবচেয়ে বেশি হাসি ফুটিয়েছেন সালমান খান। অন্যভাবে বলা যায়, সালমান খান ক্যাটরিনাকে যত খুশি রাখতে পারেন, অন্য কেউ তা পারেননি। আর ক্যাটরিনাকে খুশি দেখে সালমান খান যে কতটা খুশি হন, সেটা বলে দিতে হবে?

ভারত’ ছবির প্রচারণায় বলিউড হাঙ্গামার সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠানে এসেছিলেন সালমান খান আর ক্যাটরিনা কাইফ। এ সময় উপস্থাপক ফরিদুন শাহরিয়ার সালমান খানের কাছে জানতে চান, ক্যাটরিনা নায়িকা না হলে অন্য কী হতেন? প্রশ্ন শুনে গালে হাত দিয়ে ভাবতে বসেন সালমান। সালমানকে সাহায্য করতে তখন উপস্থাপক বলেন, ‘প্রোডিউসার?’ তখন পাশ থেকে ক্যাটরিনা জানান, তিনি এখন পর্যন্ত কিছুই প্রযোজনা করেননি। তখন সালমান খান খুঁজে পান প্রশ্নের উত্তর। বলেন, ‘বিয়ে করে বাচ্চা “প্রডিউস” করা উচিত ক্যাটরিনার।’

এর আগে বলিউডের ভাইজান সালমান খান জানান, তিনি চান, ক্যাটরিনা যেন তাঁকে ‘মেরি জান’ বলে ডাকে। ‘ভারত’ ছবির প্রচারে সালমান খানকে দেখা গেছে ক্যাটরিনার শাড়ি ঠিক করে দিতে। আবার কিছুদিন আগে বাবা হতে চান বলে মনের ইচ্ছা জানিয়েছেন সালমান। তবে কি তিনি ক্যাটরিনার বাচ্চার বাবা হতে চান? জ্ঞানীদের জন্য নাকি ইশারাই যথেষ্ট। সালমান খানের ইশারা নিশ্চয়ই বুঝেছেন ক্যাটরিনা।

ওই সাক্ষাৎকারে বলিউডের অন্য দুই খান শাহরুখ খান ও আমির খান অভিনেতা না হলে কী হতেন, তা-ও জানতে চাওয়া হয় সালমান খানের কাছে। জবাবে সালমান জানান, শাহরুখ খান যেকোনো কিছুই হতে পারতেন। অর্থাৎ সালমানের মতে সবকিছু হওয়ার যোগ্যতা রাখেন শাহরুখ খান। আর আমির খান নাকি যা-ই হতেন, সেখানেই সেরা হতেন। অর্থাৎ যেকোনো পেশাতেই আমির খান তাঁর ‘মি পারফেকশনিস্ট’ সুনাম অক্ষুণ্ন রাখতেন বলে সালমানের বিশ্বাস।

উপস্থাপক আরও জানতে চান, শাহরুখ নাকি আমির, কার রসবোধ বেশি? এক মুহূর্ত দেরি না করে সালমান বললেন, ‘অবশ্যই শাহরুখ।’ খানিক পরেই আবার সংশোধন করে বলেন, ‘না, আমি, আমি। আমার সেন্স অব হিউমার সবার চেয়ে ভালো।’

কমেডি নাকি অ্যাকশন, কোন ধরনের ছবি সালমানের পছন্দ? সালমান বলেন, তাঁর নাকি অ্যাকশন কমেডি পছন্দ। তবে শর্ত হলো, অ্যাকশনের সঙ্গে ইমোশন থাকতে হবে। আর কমেডি হলে হো হো করে হাসতে বাধ্য হবে দর্শক, এমন কমেডি। যদি দর্শক না-ই হাসে, তবে কমেডির কী মানে?

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *