সীমিত পরিসরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার দাবি শিক্ষকদের

সীমিত পরিসরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার দাবি শিক্ষকদের

তাজা খবর:

দেশে করোনার সংক্রমণ শুরুর পর ভাইরাসটি প্রতিরোধে বন্ধ হয় সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। কিন্তু এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের কথা বিবেচনায় সীমিত পরিসরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন শিক্ষকরা।

বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে এ দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি (বাশিস) ও এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ লিয়াঁজো ফোরাম।

বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির উপদেষ্টা অধ্যক্ষ মোহাম্মদ ফজর আলী, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব মো. মনসুর ইকবাল, সিনিয়র সহ-সভাপতি মোহসিন আলী, সহ-সভাপতি আব্দুর রহিম, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মোস্তফা কালাম খান ও তানিয়া আখতার, সহকারী মহাসচিব ঝর্না বিশ্বাস, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক রেহানা আক্তার স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে এ দাবি জানানো হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, দীর্ঘ ১৭ মাস শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীরা বইয়ের জগত ছেড়ে ফেসবুক বা পাবজি গেম ও নেশার জগতে আসক্ত হয়ে পড়ে মানসিক সমস্যায় ভুগছে। বর্তমানে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট আদান-প্রদান চলছে। কিন্তু শিক্ষার্থীরা অ্যাসাইনমেন্ট ভালোভাবে বুঝতে পারছে না।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, শিক্ষার্থীদের সঙ্গে মতবিনিময় বা সপ্তাহে কমপক্ষে তিনদিনের জন্য হলেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিলে তাদের অ্যাসাইনমেন্ট বুঝতে সুবিধা হবে বলে মনে করেন শিক্ষক নেতারা। এরপর পর্যায়ক্রমে পরিস্থিতি বুঝে অন্যান্য শ্রেণির ক্লাস চালু করা যেতে পারে।

বিবৃতিতে শিক্ষক নেতৃবৃন্দ বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় অভিভাবক, ছাত্র-শিক্ষক সবাই উদ্বিগ্ন। অভিভাবকদের স্টেশনারি, লাইব্রেরিসহ অনেক ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেছে। এতে তারা চরম অর্থ সংকটে রয়েছেন। তারা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মাসিক টিউশন ফি পরিশোধ করতে পারছেন না। শিক্ষক-কর্মচারীরা প্রতিষ্ঠানের বেতনের অংশ না পেয়ে চরম অর্থ সংকটে দিনযাপন করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *