সূচক মূলধনে নতুন রেকর্ড ১১ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ লেনদেন

সূচক মূলধনে নতুন রেকর্ড ১১ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ লেনদেন

তাজা খবর:

দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্য সূচকসহ বাকি দুটি সূচক গতকাল ইতিহাসের সর্বোচ্চ অবস্থানে উঠে এসেছে। সেই সঙ্গে ইতিহাসের সর্বোচ্চ অবস্থানে উঠে এসেছে বাজার মূলধন। লেনদেনও ইতিহাস সৃষ্টির কাছাকাছি পৌঁছে গেছে। প্রায় ১১ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ লেনদেনের দেখা মিলেছে শেয়ারবাজারে।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে (বিএসইসি) অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল- ইসলাম দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে গতি ফিরতে শুরু করে দেশের শেয়ারবাজারের। গড়তে থাকে একের পর এক নতুন নতুন রেকর্ড। গতকাল সোমবার ডিএসইতে ২ হাজার ৯৩৯ কোটি ৪৫ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে। ডিএসইতে গতকালকে যে পরিমাণ লেনদেন হয়েছে তা ১০ বছর ৮ মাস ৪ দিন বা ২ হাজার ৫২৮ কার্যদিবসের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। এর আগে ২০১০ সালের ৫ ডিসেম্বর গতকালকের চেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছিল। ঐদিন ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৩ হাজার ২৪৯ কোটি ৫৭ লাখ টাকার।

ডিএসইর সব সূচকেরও রেকর্ড গড়েছে। ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৩২ দশমিক ০৬ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ৬২৮ দশমিক ১৪ পয়েন্টে। ডিএসইর এই সূচকটি শুরুর দিন থেকে অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে সর্বোচ্চে অবস্থান করেছে। এর আগে সূচকটি গত ৫ আগস্ট সর্বোচ্চ স্থানে অবস্থান করছিল। সূচকটি ২০১৩ সালের ২৭ জানুয়ারি থেকে চালু হয়। গতকাল লেনদেন শেষে ডিএসইর অন্য সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ১২ দশমিক ৭৬ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৪৫২ দশমিক ১১ পয়েন্টে। ডিএসই-৩০ সূচক ৬ দশমিক ৭৩ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৩৯২ দশমিক ৬২ পয়েন্টে। এ দুই সূচক অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে সর্বোচ্চে অবস্থান করছে। এর আগে শরিয়াহ সূচক ২০১৪ সালের ১৯ জানুয়ারি ৯৪১ দশমিক ২৭ পয়েন্টে। আর ডিএসই-৩০ সূচক ২০১৩ সালের ২৭ জানুয়ারি ১ হাজার ৪৬০ দশমিক ৩০ পয়েন্টে চালু হয়েছে।

বাজারের তথ্যে দেখা গেছে, ডিএসইতে গতকাল ৩৭৪টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ১৮১টির বা ৪৮ দশমিক ৪০ শতাংশের, শেয়ারদর কমেছে ১৭৩টির বা ৪৬ দশমিক ২৬ শতাংশের এবং ২০টির বা ৫ দশমিক ৩৪ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকোর শেয়ার। কোম্পানিটির ১৫২ কোটি ৮৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা ওরিয়ন ফার্মার ৭১ কোটি ৬০ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে। ৬০ কোটি ৭৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে আইএফআইসি ব্যাংক।

এছাড়া ডিএসইতে লেনদেনের দিক থেকে শীর্ষ ১০ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় রয়েছে ন্যাশনাল পলিমার, জিপিএইচ ইস্পাত, এসএস স্টিল, জিনেক্স ইনফোসিস, মালিক স্পিনিং, ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো এবং ফু-ওয়াং সিরামিক।

অন্য শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১০১ দশমিক ৪৪ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৯ হাজার ২৮৯ দশমিক ৭৮ পয়েন্টে। সিএসইতে গতকাল ৩২১টি প্রতিষ্ঠান লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১৫৭টির দর বেড়েছে, কমেছে ১৪৪টির আর ২০টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে। সিএসইতে ১২৮ কোটি ১৮ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *