১৫ বছরের বেশি বয়সীরাও পাবে এনআইডি নম্বর

১৫ বছরের বেশি বয়সীরাও পাবে এনআইডি নম্বর

তাজা খবর:

আগামীতে ১৫ বছরের বেশি বয়সীদের জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর দেবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এ জন্য ১৫ বছর ও তার বেশি বয়সী নাগরিকদের নিবন্ধনের আওতায় আনার ফের উদ্যোগ নিচ্ছে নির্বাচন কমিশনের জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগ। সেক্ষেত্রে ২০০৬ সালের ১ জানুয়ারি ও তার আগে যাদের জন্ম তারা অনলাইনে এনআইডি সেবার জন্য আবেদন করতে পারবে। তবে ১৮ বছর পূর্ণ হলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে তারা ভোটার তালিকাভুক্ত হয়ে যাবে। তবে নিবন্ধন কার্যক্রম শেষ হওয়ার পর সংশ্লিষ্টদের এনআইডি নম্বর দেওয়া হবে। এর আগে ২০১৯ সালে একসঙ্গে ১৫-১৮ বছর বয়সীদের নিবন্ধন করা হয়।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর গেল বছর এপ্রিল থেকে ইসির এনআইডি উইং অনলাইন সেবা চালু করে। করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয় এ বছর। নানা বয়সীদের টিকা নিবন্ধনের আওতায় আনছে সরকার। সর্বশেষ ১৮ বছর বয়সীদেরও টিকা দেওয়ার উদ্যোগ চলছে। পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ারও প্রক্রিয়া শুরু হয়। নাগরিক সেবার পাশাপাশি টিকা নেওয়ার কাজে নাগরিকদের সুবিধার্থে নতুন করে ভোটার নিবন্ধনের উদ্যোগ নিচ্ছে নির্বাচন কমিশন।

২০০৭-০৮ সালে ছবিসহ ভোটার তালিকা প্রণয়ন শুরু হয়। সংশোধন, স্থানান্তরসহ নিয়মিতভাবে নতুনদের যুক্ত এবং মৃতদের বাদ দিয়ে ভোটার তালিকা হালনাগাদ হয়। সর্বশেষ ২০১৯ সালে একসঙ্গে ১৫-১৮ বছর বয়সীদের নিবন্ধন করা হয়। ১ জানুয়ারি ২০০৪ সাল ও তার আগে যাদের জন্ম তাদের নিবন্ধনের আওতায় আনা হয়। ২০২২ সালে তাদের অনেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভোটার তালিকাভুক্ত হবে। বর্তমানে দেশে ১১ কোটি ১৭ লাখেরও বেশি ভোটার রয়েছে। এ বিষয়ে এনআইডি উইংয়ের পরিচালক (অপারেশন্স) মো. নুরুজ্জামান তালুকদার বলেন, নির্বাচন কমিশনের কাছে এ সংক্রান্ত প্রস্তাবনা দেওয়া হয়েছে। সোমবার এনআইডি ডিজি মহোদয় একটা সভা করেছেন। ১ জানুয়ারি ২০০৬ বা তার আগে যাদের জন্ম তাদের নিবন্ধন করার উদ্যোগ নিতে সভায় আলোচনা হয়েছে। কমিশনের কাছে এ প্রস্তাবটা গেছে। এ উদ্যোগ মাননীয় নির্বাচন কমিশন বিবেচনা করবেন। তিনি জানান, বাড়ি বাড়ি গিয়ে তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে না। প্রচারণা করা হবে। অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন নাগরিকরা। অনলাইনে থাকতে চাই আমরা। অনলাইনে আবেদন করলে নতুন করে ফরম পূরণ করতে হবে না। ভেরিফাই করে আঙুলের ছাপসহ নিবন্ধন করে নেওয়া হবে। নিবন্ধিত হলেই এনআইডি নম্বর পাবে সংশ্লিষ্টরা। ইসির এ কর্মকর্তা জানান, জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন আইনে এনআইডি পাওয়ার ক্ষেত্রে কোনো বয়সসীমা উল্লেখ নেই। নিবন্ধিত হলেই এনআইডি পাবেন তারা। নুরুজ্জামান তালুকদার বলেন, ১৮-এর কম বয়সীরাও এনআইডি পাচ্ছে। ভোটার না হলেও এনআইডি নম্বর পেয়ে যাচ্ছে। এখন এনআইডিটা জরুরি। ১৮ বছর হলেই তারা ভোটার তালিকাভুক্ত হয়ে যাবে স্বয়ংক্রিয়ভাবে। শিক্ষার্থীদের টিকা দিয়েই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার উদ্যোগও রয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে ইসির এই উদ্যোগ কাজে লাগবে। ২০০৪ সালের ১ জানুয়ারি বা তার আগে যাদের জন্ম তাদের নিবন্ধন করা হয়েছে সর্বশেষ হালনাগাদে। এবার আরও দুই বছর যুক্ত হলে ৩০-৪০ লাখের মতো নতুন ভোটার যুক্ত হতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *