৫৪৫ দিন ছুটি কাটিয়ে স্কুলে ফিরবে শিক্ষার্থীরা

৫৪৫ দিন ছুটি কাটিয়ে স্কুলে ফিরবে শিক্ষার্থীরা

তাজা খবর:

ছুটি মানেই আনন্দ, ছুটি মানেই বাধাহীন উচ্ছ্বাসের উপলক্ষ্য। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা ‘ছুটি’ নিয়ে বাংলা সাহিত্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং বহুল পঠিত কবিতাটিও ঢের মনে পড়ে—‘মেঘের কোলে রোদ হেসেছে/ বাদল গেছে টুটি,/ আজ আমাদের ছুটি ও ভাই/ আজ আমাদের ছুটি’।

অথচ করোনাকালে ছুটির অনুভূতি পাল্টে গেছে। স্কুল বন্ধ মানেই ত্যক্ততা—এখনকার অনুভূতি এমনই। কারণ টানা ৫৪৫ দিন ছুটির কারণে স্কুলের প্রিয় আঙিনায় যাওয়া হয়নি, আড্ডা হয়নি বন্ধুদের সঙ্গে। শিক্ষকরাও তাদের প্রিয় ছাত্রদের জন্য অপেক্ষা করেছেন। এক মাস, দু’মাস, বছর… এর পর ঠিকই বিরক্ত হয়ে গেছেন সবাই।

অবশেষে বন্ধ থাকা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আগামী ১২ সেপ্টেম্বর থেকে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরু হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। করোনাকালে শিক্ষার্থীদের জন্য সবচেয়ে আনন্দের খবর বোধহয় এটিই।

দেশে প্রথম করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে গত বছরের ৮ মার্চ। এর ১০ দিন পর প্রথম মৃত্যু হয় করোনায়। তার আগের দিন থেকেই (১৭ মার্চ) শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এরপর কয়েক দফায় ছুটি বাড়ানো হয়।

প্রায় দেড় বছর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় লেখাপড়া থেকে দূরে সরে গেছেন বেশিরভাগ শিক্ষার্থী।সংক্রমণ পরিস্থিতিতে গত বছরের প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা এবং জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে।

গত বছরের উচ্চমাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) পরীক্ষাও হয়নি। পরীক্ষা না নিয়েই এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার্থীদের মূল্যায়নের ফল গত জানুয়ারিতে ঘোষণা করা হয়। এছাড়াও প্রাথমিক ও মাধ্যমিকে বার্ষিক পরীক্ষা ছাড়াই শিক্ষার্থীদের পরে শ্রেণিতে উত্তীর্ণ করা হয়েছে।

করোনাকালে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি থাকলেও ‘অনলাইন শিক্ষা’ কার্যক্রম চালু রেখেছে সরকার। স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম চলমান আছে। কওমী মাদ্রাসাগুলো সীমিত আকারে খুলে দেওয়া হয়।

৫৪৫ বন্ধ থাকার পর স্কুল ও কলেজ খুলেছে। নতুন ক্লাস, নতুন বই; হয়তো অনেকে মন বসবে না ক্লাসে। কারণ অনেক দিন সকালে ওঠা হয়নি, বাড়ির কাজ ছিল না—স্কুলের নিয়মের বাইরে থাকতে থাকতে একটা অলসতা ভর করেছে যেন। কিন্তু একটু কষ্ট হলেও, আবার আগের নিয়মে ফিরতে হবে। স্কুল খোলার ঘণ্টা বাজলো তো…!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *